1. live@bisshosangbad.com : বিশ্ব সংবাদ : বিশ্ব সংবাদ
  2. info@www.bisshosangbad.com : বিশ্ব সংবাদ :
সোমবার, ২২ জুলাই ২০২৪, ১০:৪৮ অপরাহ্ন
সর্বশেষ :
এমপি নিখিলের গাড়িতে হামলা। সংবাদ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী… বিরক্ত হয়ে কোটা বাদ দিয়েছিলাম, কি হয় দেখার জন্য। বাংলাদেশ তৃণমূল সাংবাদিক ও মানবাধিকার সোসাইটি’এর উদ্দোগে মিরপুরে মানববন্ধন। দেশে কোনো বিচার নেই———আদালতে বিএনপি নেতা মাহবুব চৌধুরী। কোটাব্যাবস্হা পূর্ণবহাল মেধাবী শিক্ষার্থীদের সাথে প্রহসন ——— বিএনপি নেতা মাহবুব চৌধুরী। কোটাবিরোধী আন্দোলনের কোনো যোক্তিকতা নেই : প্রধানমন্ত্রী। মেডিকেল কলেজ দখলের চেষ্টায় স্বাচিপ সভাপতি! দুদকের তদন্ত, পুলিশের সাবেক কর্মকর্তার অবৈধ সম্পদের পাহাড়। ইসলামি ৬টি ব্যাংকের অবস্থা এখন আরও খারাপ। বাজার পরিস্থিতি, ঝাঁজ ছড়াচ্ছে পেঁয়াজ, অপরিবর্তিত মরিচের দাম।

বিশ্ব রাজনীতিতে ভারসাম্য রক্ষাকারী দেশগুলোর মধ্যে অস্থিরতা বাড়ার আশঙ্কা।

প্রতিবেদকের নাম:
  • প্রকাশিত: বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪
  • ৫৬ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্ট।

 

যুক্তরাষ্ট্র ও পশ্চিমা দেশগুলোর কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দীর্ঘ ২৪ বছর পর আবারো উত্তর কোরিয়া সফরে গেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তার এই সফরের কারণে যুক্তরাষ্ট্রের ইন্দো-প্যাসিফিক রূপরেখার উপর চাপ সৃষ্টি করবে এবং চীন-মার্কিন দ্বন্দ্বে ভারসাম্য রক্ষাকারী দেশগুলোর মধ্যে অস্থিরতা বাড়বে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

চলমান ইউক্রেন যুদ্ধ আরো দীর্ঘ হওয়া নিয়ে বিশ্ববাসী যখন উদ্বিগ্ন হয়ে আছে সেসময় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন এবং পুতিন আবারো সাক্ষাৎ করলেন। ‘উত্তর এবং দক্ষিণ কোরিয়ার সম্পর্কের জন্য এ সফর ইতিবাচক হবে না বরং মনে হচ্ছে খারাপের দিকেই যাবে’ বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

গত ২০১৯ সালের ৩০ জুন দুই কোরিয়াকে বিভক্ত করে এমন একটি অত্যন্ত সুরক্ষিত এলাকায় উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সাথে দেখা করার পর প্রথম মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে উত্তর কোরিয়ার ভেতরে প্রবেশ করেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।
অসামরিকীকৃত এলাকাটিতে কিম জং-উনের সাথে করমর্দন করে একটি ছবি তোলার পর এই পদক্ষেপকে ‘বড় অগ্রগতি’ হিসেবে উল্লেখ করেন ট্রাম্প।
তবে সমালোচকরা সেসময় এটিকে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত পদক্ষেপ বলে অভিহিত করেছিলেন। এই পদক্ষেপের পর যুক্তরাষ্ট্র ভবিষ্যতের আলোচনার পথ সুগম হতে পারে এমন কোনো কার্যক্রম গ্রহণ করেনি তবে রাশিয়া এখন তা করলো।

পুতিন এই সফরের মাধ্যমে বিশ্বকে জানিয়ে দিল যে ‘লুক ইষ্ট’ নীতিতে সে অবিচল আছে এবং এশিয়ায় তার অবস্থান সুদৃঢ় হচ্ছে।

গত স্নায়ু যুদ্ধের সময় রাশিয়া (তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়ন) এশিয়ায় রাজনীতিতে ব্যাপকভাবে অংশগ্রহণ করে এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে পরাস্ত করে বিজয়ী হয়।

দক্ষিণ এশিয়ায় ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত পাকিস্তান পরাজিত হয় এবং পাকিস্তান বিভক্ত হয়। সোভিয়েতের সমর্থনে এবং সোভিয়েতের ঘনিষ্ঠ বন্ধু ভারতের সহযোগিতায় ( সোভিয়েত-ভারত মৈত্রী চুক্তি) মুক্তিযোদ্ধারা ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশকে মুক্ত করে।

ভিয়েতনামে কমিউনিস্ট গেরিলাদের সোভিয়েত ইউনিয়ন এবং চীন সমর্থন দেয়, আমেরিকা ১৯৭৪ সালে ভিয়েতনাম যুদ্ধে পরাজিত হয়।

অপরদিকে, দীর্ঘ স্নায়ু যুদ্ধ পরিচালনা করে যুক্তরাষ্ট্র ১৯৯১ সালের ২৬ ডিসেম্বর সোভিয়েত ইউনিয়নকে পরাজিত করে। সোভিয়েত ভেঙ্গে যায়।

এর প্রতিশোধ নেয়ার জন্য সোভিয়েত ইউনিয়নের সাবেক কেজিবি অফিসার পুতিন উঠেপড়ে লেগেছে। কিমের সঙ্গে বৈঠক করে একাজে একধাপ এগিয়ে গেল মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

চীন-রাশিয়া-উত্তর কোরিয়ার ট্রায়ো যুক্তরাষ্ট্রের উপর সরাসরি চাপ বৃদ্ধি করলো। যুক্তরাষ্ট্র তার মাথার উপর থেকে এই চাপ সরানোর জন্য কি পদক্ষেপ গ্রহণ করে তা এখন দেখার বিষয় বলে মনে করছেন রাজনৈতিক, সামরিক এবং কুটনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ পড়ুন

পুরাতন সংবাদ পড়ুন

সোম মঙ্গল বুধ বৃহ শুক্র শনি রবি
 
১০১১১২১৩১৪১৫১৬
১৭১৮১৯২০২১২২২৩
২৪২৫২৬২৭২৮২৯৩০
© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট